Uncategorized

জেলায় প্রথম করোনা আক্রান্ত ২ মৃতদেহের ময়নাতদন্ত

জেলায় এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের চিকিৎসকেরা, এই প্রথম কোভিড মৃতদেহের ময়নাতদন্ত হল মহকুমা
হাসপাতালে। চিকিৎসকদের দাবী অতিমারির এই সঙ্কটময় পরিস্থিতিকে কাজে লাগিয়ে দুষ্কৃতীরা ঘটাতে পারে যে কোন রকম অপরাধ মুলিক
কাজ। হতে পারে খুনের ঘটনা। কোনরকম ভাবে একটা কোভিড পজিটিভ সার্টিফিকেট জোগার করে নিতে পারলে কেল্লাফতে। আর এই
সুজোগকেই কাজে লাগিয়ে ঘটে যেতে পারে অপরাধমুলক কাজ। আর তাতে করে বোঝার উপায় থাকবে না ঐ ব্যক্তির মৃত্যু হলো কি ভাবে।
দুষ্কৃতীরাও রয়ে যাবে অধরা। এবার সেই ঝুঁকি পয়্ররন কাজই করলেন দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালের চিকিৎসকেরা। দুই পরিবারের সন্দেহ
থাকায় কোভিড বিধি ও সরকারী গাইডলাইন মেনেই হলো দুই কোভিড আক্রান্ত ব্যক্তির মৃতদেহের ময়নাতদন্ত। সরকারী হাসপাতালের
চিকিৎসক ডঃ দিলীপ কুমার মন্ডলের নেতৃত্বে হয় এই ঝুঁকিপূর্ণ কাজ। হাসপাতালের সুপার ডঃ ধীমান মন্ডল জানান, রাজ্যে হাতেগোনা
কয়েকটি জায়গা ছাড়া, পশ্চিম বর্ধমানে এই প্রথম কোভিড মৃতদেহের ময়না তদন্ত হল। যা ছিল অত্যন্ত ঝুঁকি পূর্ণ।

ডঃ দিলীপ কুমার মন্ডলের দাবী, সঙ্কটের এই সময়কে হাতিয়ার করে অনেক অপরাধ্মুলক কাজ সঙ্গঠিত হতে পারে। দুই পরিবারের
সন্দেহ থাকায় মহকুমা হাসপাতালের চিকিৎসকেরা রাজি হয়ে যায় কোভিড মৃতদেহের ময়নাতদন্ত করতে।

একেবারে সামনের সারি থেকে কোভিড যোদ্ধা হয়ে কাজ করে চলেছেন চিকিৎসকেরা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যে কাজ করলেন
মহকুমা হাসপাতালের চিকিৎসকেরা তার জন্য শুধু প্রশংসাই নয় কূর্নিশ আমাদের তরফে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button